Breaking News

এইমাত্র পাওয়াঃ নতুন চুক্তি করলেন সাকিব

হজারো আলোচনা সমালোচনার তোপের মুখেই আছেন তিনি। খোদ তার ভক্তরাও স্টাম্প কাণ্ড নিয়ে বিব্রত। রীতিমতো তাকে নিষেধাজ্ঞায় পড়তে হয়েছে।

কিন্তু তাতে বিজ্ঞাপনের বাজারে জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েনি জাতীয় দলের এই তারকা ক্রিকেটারের। নিষেধাজ্ঞা চলার সময় জৈব সুরক্ষা বলয়েই থাকার কথা তার। কিন্তু এর মধ্যেই একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নতুন চুক্তিতে জড়ালেন তিনি।

একদিন আগে চুক্তিটা হলেও সাকিব তা প্রকাশ্যে আনলেন বুধবার। নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে চুক্তিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানটির একটি ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। সেখানে জানালেন, ‘এ-ই রিলায়েবল কনসাল্টেন্সি’ নামের সঙ্গে চুক্তি করে যারপরনাই খুশি তিনি। সাকিব বলছিলেন, ‘তাদের সমর্থন করতে পেরে আমি আনন্দিত।’

যে প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সাকিব চুক্তি করলেন, তারা জানিয়েছেন, বিশ্বের এক নম্বর ক্রিকেট অলরাউন্ডার সাকিবের সঙ্গে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসাবে আগামী দু’বছরের জন্য চুক্তি করেছেন তারা। এখন থেকে বিভিন্ন শিক্ষা মেলায় তাদের পরামর্শদাতার মুখোমুখি হবেন আর শিক্ষা এবং উচ্চতর শিক্ষার প্রচার করবেন।

সাকিব যে প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেন তারা দেশের বাইরে সরকারী ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে পরামর্শ দিয়ে থাকে। বিশেষ করে মালয়েশিয়ার শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সঙ্গে তারা কাজ করে।

যখন তাকে ঘিরে বিতর্ক তুঙ্গে তখনই কিনা নতুন আরেকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেন সাকিব। যদিও বলা হচ্ছিল মানসিকভাবে বেশ অস্থিরতায় আছেন তিনি। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা পরিবারের সদস্যদের মিস করছেন।

একদিন আগে যে দিন চুক্তি হলো সেদিনই, তার বড় কন্যা আলাইনা হাসান অব্রি পড়াশোনার প্রথম ধাপে শেষ করলো কিন্ডারগার্টেন পর্ব। সেখানে কন্যার পাশে থাকতে না পেরে সাকিব ফেসবুকে লিখেন, ‘কিন্ডারগার্টেন থেকে গ্র্যাজুয়েশন করার জন্য আমার বড় মেয়েকে অভিনন্দন। আমি দুঃখিত তোমার বড় দিনটি মিস করেছি। তবে আমি নিকট ভবিষ্যতে এর কোনটি মিস না করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি!’

আইপিএল খেলে দেশে ফিরে কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন সাকিব। এরপর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে মোহামেডানে নাম লেখান। দলটির নেতৃত্বে আছেন তিনি। তবে মাঠে সাফল্য নেই। একইভাবে মেজাজ হারিয়ে এখন তিনি নিষেধাজ্ঞা নিয়ে মাঠের বাইরে।

গত শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে ম্যাচে তিন দফায় বিতর্কিত ঘটনার জন্ম দেন সাকিব আল হাসান। প্রথমবার লাথি মারেন স্টাম্পে, এরপর স্টাম্প তুলে আছাড় মারেন।

আবাহনীর ড্রেসিং রুম বা গ্যালারির দিকে দৃষ্টিকটু ইঙ্গিত করেন তিনি। বিবাদে জড়ান আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গেও। এরপর অবশ্য ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চেয়েও মুক্তি পাননি। তিন ম্যাচ আর ৫ লাখ টাকা জরিমানা হয়েছে মোহামেডান অধিনায়কের।

তবে সেই ধাক্কা পাশে সরিয়ে নতুন চুক্তির দিনে হাসিমুখেই ধরা দিলেন সাকিব। মাঠের বাইরে বিজ্ঞাপনের ব্যস্ত দুনিয়ায় আরেকটু ব্যস্ততা বেড়েই গেল তার!

Check Also

বাংলাদেশ দল যে কারণে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ফরম্যাটে সফল হয়েছে

বাংলাদেশ বিদেশের মাটিতে এ প্রথমবার তিন ফরম্যাটে সিরিজ জিতেছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি সিরিজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *